স্বামীর চেয়ে কুকুর–বিড়ালে মনযোগ বেশি স্ত্রীর, কুয়েতে বাড়ছে বিচ্ছেদ – News Portal 24
ঢাকাMonday , ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

স্বামীর চেয়ে কুকুর–বিড়ালে মনযোগ বেশি স্ত্রীর, কুয়েতে বাড়ছে বিচ্ছেদ

নিউজ পোর্টাল ২৪
ফেব্রুয়ারী ১২, ২০২৪ ১:৩২ পূর্বাহ্ন
Link Copied!

তেল সমৃদ্ধ মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কুয়েতে পোষা প্রাণী নিয়ে স্বামী–স্ত্রীর বিরোধ বাড়ছে। সেই বিরোধ এমনকি বিচ্ছেদ পর্যন্ত গড়াচ্ছে। দেশটিতে পোষা প্রাণীর কারণে দাম্পত্যকলহ ও বিচ্ছেদ উল্লেখযোগ্যভাবে বেড়েছে। ২০২৩ সালে এ কারণে ৪০টি বিচ্ছেদ হয়েছে বলে সংবাদমাধ্যম গালফ নিউজের প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, বিচ্ছেদের মামলায় পোষা বিড়াল ও কুকুরকে প্রাধান্য দেওয়া নিয়ে দম্পতিদের মধ্যে দ্বন্দ্বের সৃষ্টি হচ্ছে বলে উল্লেখ করা হচ্ছে।

এ বিষয়ে অবহিত একটি সূত্রের বরাত দিয়ে গালফ নিউজের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এক সঙ্গীর পোষা প্রাণীর প্রতি গভীর স্নেহ ও অতিরিক্ত মনযোগের কারণে অপর সঙ্গী অবহেলিত ও বিরক্তি বোধ তৈরি করে। এই বিরক্তিবোধ থেকে সঙ্গী সমান যত্ন ও গুরুত্ব দাবি করলেই শুরু হয় কলহ।

আদালতে এক মামলার বিবরণী অনুসারে, এক স্বামী স্ত্রীর বিরুদ্ধে অভিযোগ করে বলেন, তাঁর স্ত্রী কুকুরের প্রতি অতিরিক্ত যত্ন নেন, সেটিকে চার বেলা খাবার দেন, পরিষ্কার করেন এবং সেটির বিনোদন ও মনস্তাত্ত্বিক বিকাশের জন্য নানা কিছু করেন।

স্বামীটি বলেন, ‘তাঁর তো কুকুরের চেয়ে আমার বেশি যত্ন নেওয়ার কথা। কিন্তু সে আমার খেয়াল না রেখে কুকুরকে গুরুত্ব দেয়।’

শুধু কুকুর নিয়ে নয়, বিড়াল নিয়েও বহু দম্পতির দ্বন্দ্ব আদালত পর্যন্ত গড়িয়েছে। অনেকে সঙ্গীকে ‘হয় আমি না হয় বিড়াল’ আল্টিমেটাম দিয়েছেন। পোষা প্রাণী নিয়ে এ দ্বন্দ্ব প্রায়ই সম্পর্ক ছিন্ন পর্যন্ত গড়িয়ে যায়।

পোষা প্রাণী প্রেমীরা বলছেন, কুকুর–বিড়ালের দেখাশোনা করার মাধ্যমে মানসিক শান্তি পাওয়া যায়। পোষা প্রাণীর সঙ্গে মানসিক বন্ধন মানব সম্পর্কের মতোই গুরুত্বপূর্ণ।