মানিকগঞ্জের দৌলতপুরে ককটেল ও গুলি ছুঁড়ে দুর্ধর্ষ ডাকাতি - News Portal 24
ঢাকাSaturday , ১৪ অক্টোবর ২০২৩

মানিকগঞ্জের দৌলতপুরে ককটেল ও গুলি ছুঁড়ে দুর্ধর্ষ  ডাকাতি

Link Copied!

মানিকগঞ্জের দৌলতপুরে চলতি পথে গতিরোধ করে ককটেল ফাটিয়ে ও গুলি ছুঁড়ে দিলু রাজবংশী নামে এক ব্যবসায়ীর ৭০ ভরি স্বর্ণ ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় তার কাছ থেকে এক লাখ টাকাও ছিনতাই করা হয়। এ ঘটনায় একজনকে আটক করেছে পুলিশ।‌

দৌলতপুর থানার ওসি শফিকুল ইসলাম মোল্লা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

শুক্রবার (১৩ অক্টোবর) রাত সাড়ে ৯ দিকে বরংগাইল-টাঙ্গাইল আঞ্চলিক মহাসড়কের দৌলতপুর বাজারের অদূরে শ্রীদাম ঘোষের বাড়ির পাশে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় ছিনতাইকারীদের ধরতে আসা জাকির হোসেন মৃধা (৩৬) নামে একজন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। তাকে দৌলতপুর উপজেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আটককৃত ছিনতাইকারী মো. জসিম উদ্দিন (৩৬) গোপালগঞ্জ জেলার সদর উপজেলার মানিকদা এলাকার আবুল শেখের ছেলে।

ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী দিলু রাজবংশী (৪০) জানায়, আমি দৌলতপুর বাজারে মা জননী জুয়েলার্সের স্বত্বাধিকারী। প্রতিদিনের মতোই আজ রাতেও আমি আমার কর্মচারীকে সঙ্গে নিয়ে মোটরসাইকেল যোগে বাড়ি ফিরছিলাম।

তিনি জানান, পথিমধ্যে দুটি মোটরসাইকেল করে পাঁচজন ছিনতাইকারী আমাদের মোটরসাইকেলের গতিরোধ করে ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায় এবং দুই রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুঁড়ে। এ সময় আমাদের কাছে থাকা ৭০ ভরি স্বর্ণ ও এক লাখ টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যায়।

তিনি আরও জানান, আমাদের চিৎকার শুনে আশেপাশের লোকজন এগিয়ে এসে ছিনতাইকারীদের ধাওয়া করে। পরে নাগরপুরের গাংবিহালী এলাকার স্থানীয় লোকজন ছিনতাইকারীদের মোটরসাইকেল ঘেরাও করলে সেখানেও গুলি ছুঁড়ে পালিয়ে যায় তারা।‌ এক পর্যায়ে দৌলতপুরের গাজীছাইল নামক স্থানে দৌলতপুর সদর চকমিরপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এসএম শফিকুল ইসলাম শফিক, উপজেলা ছাত্র লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোঃ জুয়েল রানা, কলিয়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মোঃ জাকির হোসেন আসন্ন সংসদ নির্বাচনের প্রচারণা শেষে বাড়ি ফেরার পথে  স্থানীয় লোকজন নিয়ে ছিনতাইকারী দের ধাওয়া করে ওই চক্রের এক সদস্যকে আটক করে পুলিশের কাছে তুলে দেয়।‌ এসময় ছিনতাই  দলের ২টি মোটর সাইকেল জব্দ করা হয়।

আরও পড়ুনঃ  ফুলবাড়ীতে ধাক্কাধাক্কির জেরে নবম শ্রেণির শিক্ষার্থীকে বেদম মারধর, বখাটে শিক্ষার্থী বহিস্কার

দৌলতপুর থানার ওসি শফিকুল ইসলাম মোল্লা জানান, ছিনতাইকারী চক্রের এক সদস্যকে আটক করা হয়েছে।‌‌ এ চক্রের সঙ্গে জড়িত অন্যদের ধরতে কাজ করছে পুলিশ। মালামাল উদ্ধারের চেষ্টা চলছে। আইনী ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।