হঠাৎ হার্ট অ্যাটাক, জেনে নিন প্রতিকার – News Portal 24
ঢাকাSunday , ২০ অগাস্ট ২০২৩

হঠাৎ হার্ট অ্যাটাক, জেনে নিন প্রতিকার

নিউজ পোর্টাল ২৪
অগাস্ট ২০, ২০২৩ ১:৪২ পূর্বাহ্ন
Link Copied!

সেদিন অফিস থেকে বাসায় ফিরছিলেন কামাল সাহেব। অফিসে কাজের কিছুটা প্রেসার ছিল। তাই দেরিতে বাসার দিকে রওনা দেন। হঠাৎ গাড়িতে কামাল সাহেব বুকে অস্বস্তিকর ব্যথা অনুভূব করেন। হার্ট অ্যাটাকের কারণে অনেক সময় মানুষ বুকের মাঝখানে চাপ বোধ করেন।

হার্ট অ্যাটাক
মায়োকার্ডিয়াল ইনফার্কশন, যা সাধারণত হার্ট অ্যাটাক নামে পরিচিত। সাধারণত, হার্টের রক্তনালিতে ব্লক তৈরি হয়ে রক্ত চলাচল বন্ধ হয়ে গেলে হার্ট অ্যাটাক হয়। এ ছাড়া উচ্চ রক্তচাপ, ডায়াবেটিস, ধূমপান, অস্বাস্থ্যকর জীবনযাপন, মানসিক চাপসহ বিভিন্ন কারণে হার্ট অ্যাটাক হতে পারে।

লক্ষণ
হার্ট অ্যাটাকের সময় বুকে অসহ্য চাপ বা ব্যথা অনুভব হয়। এ ছাড়া ঘাড়, গলা, পিঠে ব্যথা হয়। এ সময় ঘন ঘন নিঃশ্বাস, বমি বমি ভাব, মাথা ঝিমঝিম ও শরীর থেকে ঘাম বের হয়। এতে রোগী অনেক বেশি ক্লান্ত হয়ে পড়েন।

করণীয়
হার্ট অ্যাটাক হলে দ্রুত ও ঘন কাশি দিতে হবে, যেন কাশির সঙ্গে কফ বের হয়ে আসে। প্রতিবার কাশি দেওয়ার আগে জোরে দীর্ঘশ্বাস নিতে হবে। এতে হৃৎপিণ্ডে কিছুটা হলেও রক্ত সঞ্চালন করবে। যা হাসপাতালে নেওয়ার আগে এটি রোগীকে অনেক বেশি সাপোর্ট দিবে।

চিকিৎসা
হার্টের রক্তনালির রক্ত চলাচল পুনঃপ্রতিস্থাপন করাই এর প্রধান চিকিৎসা। যত দ্রুত চিকিৎসার উদ্যোগ গ্রহণ করা যাবে, রোগীর সুস্থ হয়ে ওঠার সম্ভাবনা তত বেশি দ্রুত হবে। এ ছাড়া বর্তমানে হার্ট অ্যাটাকের চিকিৎসা হলো অ্যানজিওগ্রামের মাধ্যমে হার্টের ব্লক শনাক্ত করে তা অপসারণ করে রক্ত চলাচল পুনঃপ্রতিস্থাপন করা।

প্রতিরোধ
স্বাস্থ্যসম্মত জীবনযাপনে হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি অনেকাংশে প্রতিরোধ করা সম্ভব। এর কারণে-

১. ধূমপানকে চিরতরে বিদায় জানাতে হবে।
২. ডায়াবেটিস ও উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে।
৩. চর্বিজাতীয় খাবার পরিহার করুতে হবে।
৪. প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় যোগ করতে হবে পর্যাপ্ত শাকসবজি, ফলমূল।
৫. নিয়মিত শরীরচর্চা করতে হবে।
৬. দুশ্চিন্তা ও মানসিক চাপমুক্ত থাকতে হবে।
৭. প্রতিদিন ৩০ মিনিট হাঁটার অভ্যাস করতে হবে।
৮. হার্ট অ্যাটাকের পর অনেকেই বিষণ্নতায় আক্রান্ত হন। তাই এই সময় কাজের চাপ ও মানসিক চাপ কমিয়ে আনতে হবে।