‘টাকার বিনিময়ে আমার সঙ্গে সময় কাটানোর প্রস্তাব দিয়েছিল তরুণী’ – News Portal 24
ঢাকাSaturday , ২০ মে ২০২৩

‘টাকার বিনিময়ে আমার সঙ্গে সময় কাটানোর প্রস্তাব দিয়েছিল তরুণী’

নিউজ পোর্টাল ২৪
মে ২০, ২০২৩ ৮:২১ পূর্বাহ্ন
Link Copied!

ঢাকাই চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় চিত্রনায়ক ও শিল্পী সমিতির দুইবারের সাবেক সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান মানেই আলোচনা। কখনো সংগঠন, কখনো সিনেমা, আবার কখনো ব্যক্তিজীবন নিয়ে। তবে সাম্প্রতিক ব্যক্তিজীবন নিয়েই বেশি আলোচনায় এ অভিনেতা।

এ তারকা প্রায়ই বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে দেয়া সাক্ষাৎকারে বলে থাকেন, তার অনেক নারী ভক্ত। সেসব ভক্তরা অনেক ভালোবাসেন তাকে। এছাড়া নারীদের কাছ থেকে যত প্রেম নিবেদন পেয়েছেন—তা অবিশ্বাস্য।

এবার এ নায়ক জানালেন, তার সঙ্গে একান্তে সময় কাটানোর জন্য মোটা অংকের টাকা দেয়ার প্রস্তাব দিয়েছিলেন এক তরুণী। সম্প্রতি বেসরকারি একটি টিভি চ্যানেলকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এ কথা বলেন জায়েদ খান।

তিনি বলেন, আমার ফেসবুক ঘাঁটলে দেখবেন, তিন ভাগের এক ভাগ মেয়ে। আমার যত ফোন আসে, সব মেয়েদের। আমি যত গিফট পাই, সব মেয়েদের। আমি মেয়েদের কাছ থেকে যত প্রেম নিবেদন পেয়েছি, সেটা আনবিলিভেবল। অনেক মেয়ে বিয়ে করছে না, করবে না নাকি আজীবন। তাদের বোঝানোর চেষ্টা করেও লাভ হচ্ছে না। বলেছি আগুনের পেছনে ছুটলে হাত পুড়ে যাবে। তবে আমি আগুন হয়েই থাকতে চাই। আমি সুন্দরীদের জ্বালাতে চাই।

শিল্পী সমিতির দুইবারের সাবেক সাধারণ সম্পাদকের ভাষ্যমতে, একটা মেয়ের এমনও প্রস্তাব পেয়েছি যে, আপনি একটি সিনেমায় কত টাকা নেন? আমি বলেছি, এই টাকা নেই। তা একটি সিনেমা করতে কতদিন লাগে? বলেছি এতদিন লাগে। এরপর বলে, পাঁচটি সিনেমায় যে টাকা লাগে সেটি আপনাকে দিয়ে দেব আমি—বিনিময়ে আপনার সঙ্গে সময় কাটাতে চাই আমি।

জায়েদ খান বলেন, মনে মনে হাসছি আমি। বললাম, সেটা তো আর ভালোবাসা হলো না। সে বলে, আপনি অনেক ব্যস্ত। আপনার সময়কে কিনে নিতাম, আপনাকে ভালোবেসে।

এরকম আরও অনেক ঘটনা রয়েছে বলেও জানান ‘অন্তর জ্বালা’ সিনেমার নায়ক। আর এসব ছোট ছোট ঘটনা বেশ উপভোগ করেন তিনি। তার দাবি, জীবনে এমন অনেক কিছু আছে। এসব বিষয় এনজয় করি। কিন্তু এটা সত্য যে, আমি কখনো এসবের সুযোগ নেই না। কোনো মেয়েকে মিথ্যা প্রলোভন দেখাই না। কোনো মানুষের মন নিয়ে মিথ্যা তথ্য দেই না। শুধু কথাগুলো তারা বলে আর আমি এনজয় করি।

বিষয়টি নিয়ে আলোচনার মধ্যে জায়েদ খান জানান, তিনি এখনো প্রেম করছেন না। ভালো লাগলে প্রেম করবেন, তাঁকেই বিয়ে করবেন।

তাঁর ভাষ্যে, আমি সৌন্দর্য ভালোবাসি। সেটা পজেটিভলি দেখছেন সবাই। মন্তব্য করে বলছেন, তাঁরা আমার সঙ্গে প্রেম করতে চান। আমি নাকি জাতীয় ক্রাশ। তবে তরুণীদের সাড়ায় আমি অভিভূত। তাঁরা মন থেকে আমাকে চান। এর কারণ, আমি তো নোংরামি করিনি। করলে এত দিনে অনেক কিছু বের হতো।

নিজের পরিচয় তুলে ধরে জায়েদ খান বলেন, আমি একজন শিক্ষিত ছেলে। এটাই জায়েদ খানের পরিচয়। জায়েদ আগুন হয়েই থাকবে।

জায়েদ খানের জন্ম ও বেড়ে ওঠা মফস্‌সলে। এরপর এসেছেন ঢাকা শহরে। ভর্তি হন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে। কথা প্রসঙ্গে জায়েদ খান জানান, তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির পর আর্থিক অসচ্ছলতায় দিন পার করেছেন। অনেক সময় দূর থেকে মেয়েদের দেখেও কাছে গিয়ে প্রেম নিবেদন করতে পারেননি। তবে চিত্রনায়ক হওয়ার পর জায়েদ খানের দিন বদলে গেছে।

জায়েদ বলেন, আমি সব সময় নারীদের সম্মান করি। সম্মানের সঙ্গে কথা বলি। যে কারণে অনেক তরুণী নিয়মিত ফোন দিচ্ছে। তারা আমার সঙ্গে প্রেম করতে চায়। আমাকে বিয়ে করতে চায়।

অভিনয়, ব্যক্তিগত জীবন ও শিল্পী সমিতি নিয়ে নানা বক্তব্য দিয়ে আলোচনায় থাকেন জায়েদ খান। তিনি বলেছেন, এখন প্রতিনিয়ত মেয়েরা ফেসবুকে মন্তব্য করছেন। ফোন দিয়ে অনুরোধ করছেন ফেসবুক রিকোয়েস্ট অ্যাকসেপ্ট করতে। অনেক মেয়ে ইনবক্সে ছবি পাঠাচ্ছেন। এর কারণ আমার মধ্যে ভেজাল নেই। টাকা, সম্মান হলে মানুষ বদলে যায়, কিন্তু জায়েদ খান অতীত মনে রাখে। আমি ছোট থেকে বড় হয়েছি। এসব কথা মেয়েরা পছন্দ করেছেন।