কুমারী পরিচয়ে বিয়ে, প্রতারণার দায়ে নারীর জেল – News Portal 24
ঢাকাMonday , ১ নভেম্বর ২০২১

কুমারী পরিচয়ে বিয়ে, প্রতারণার দায়ে নারীর জেল

নিউজ পোর্টাল ২৪
নভেম্বর ১, ২০২১ ১২:১৯ অপরাহ্ন
Link Copied!

একাধিক বিয়ের পরও অবিবাহিত (কুমারী) পরিচয়ে বিয়ে করে প্রতারণার মামলায় শাহরীন ইসলাম নীলা (২৪) নামে এক নারীকে এক বছর সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। একই সঙ্গে ১০ হাজার টাকার অর্থদণ্ড, অনাদায়ে আরো তিন মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

রায়ে আদালত মামলার অপর দুই আসামি নীলার মা রাজিয়া বেগম ও বাবা শাহআলমকে বেকসুর খালাস দেওয়া হয়েছে।

রোববার (৩১ অক্টোবর) দুপুরে ঢাকার প্রথম অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম আবু বকর সিদ্দিকের আদালত আসামির অনুপস্থিততে এই রায় ঘোষণা করেন। পাশাপাশি ১০ হাজার টাকার অর্থদণ্ড, অনাদায়ে আরও ৩ মাস কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

একইসঙ্গে রায়ে আদালত মামলার অপর দুই আসামি নীলার মা রাজিয়া বেগম এবং বাবা শাহআলমকে বেকসুর খালাস দিয়েছেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত নীলা ঢাকার শাহআলী থানাধীন চিড়িয়াখানা রোডের শাহ আলমের মেয়ে।

২০১৬ সালের ১৬ জুন ঢাকার খুলনা জেলার রূপসা থানা নৈহাটি গ্রামের আবুল খায়েরের ছেলে ইমরান শেখ মুখ্য মহানগর হাকিম (সিএমএম) আদালতে এ মামলা করেন। মামলাটি আদালত সরাসরি আমলে নিয়ে আসামিদের বিরুদ্ধে সমন জারি করেন। পরবর্তী সময়ে আসামিরা আদালতে হাজির হয়ে জামিন গ্রহণ করেন।

মামলায় বলা হয়, আসামি নীলা নিজেকে কুমারী পরিচয়ে ২০১৪ সালের ৩ জুলাই বাদীর সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবন্ধ হন। বিবাহের পর বাদী জানতে পারেন, আসামির পূর্বে আরো একাধিক বিয়ে করেছেন। তিনি নিজেকে প্রতারণামূলকভাবে কুমারী পরিচয় দিয়েছেন। কুমারী পরিচয়ে একাধিক বিবাহ করে পরবর্তী সময়ে তালাক প্রদান করে দেনমোহরের টাকা আদায় করেছেন।

নীলা কুমারী পরিচয়ে বিয়ে করার কিছুদিন পর তালাকের মাধ্যমে দেনমোহরের টাকা আদায় করেন বলে বিভিন্ন সূত্রে জানা যায়। রাজধানীর মিরপুর চিড়িয়াখানা রোডে বাসা ভাড়া নিয়ে নীলা ও তার পরিবার এ প্রতারণা করে আসছেন বলে বাদী এজাহারে উল্লেখ করেন।

মামলায় সাক্ষ্য-শুনানির পর আদালত রোববার পলাতক আসামি শাহরীন ইসলাম নীলাকে সাজা দিয়ে রায় ঘোষণা করে।