এসএসসি পরীক্ষার্থীর ‘মেয়ে থেকে পুরুষে’ রূপান্তরিত হওয়ার দাবি, এলাকায় চাঞ্চল্য – News Portal 24
ঢাকাSunday , ১০ অক্টোবর ২০২১

এসএসসি পরীক্ষার্থীর ‘মেয়ে থেকে পুরুষে’ রূপান্তরিত হওয়ার দাবি, এলাকায় চাঞ্চল্য

নিউজ পোর্টাল ২৪
অক্টোবর ১০, ২০২১ ১২:৪০ অপরাহ্ন
Link Copied!

অনলাইন ডেস্ক:: প্রাকৃতিকভাবে লৈঙ্গিক রূপান্তরের দাবি করেছে টাঙ্গাইলের গোপালপুর উপজেলার এক এসএসসি পরীক্ষার্থী কিশোরী (১৫)। এরপর পারিবারিকভাবে তার নাম পরিবর্তন করে “আব্দুল্লাহ জিসান” রাখা হয়েছে।

ঘটনাটি উপজেলার মির্জাপুর ইউনিয়নের একটি গ্রামের। এদিকে, বিষয়টি জানাজানি হওয়ার পর তার বাড়িতে উৎসুক জনতার ভিড় জমতে শুরু করেছে।

শনিবার (৯ অক্টোবর) রাতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন উপজেলার মির্জাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হালিমুজ্জামান তালুকদার।

স্বজনদের বরাত দিয়ে চেয়ারম্যান হালিমুজ্জামান বলেন, কয়েক মাস আগে থেকে মেয়েটির মধ্যে মধ্যে ছেলেদের মতো একটি ভাব আসে। প্রথমে সে বিষয়টি কাউকে জানায়নি। একবার তার বিয়েও ঠিক হয়েছিল। কিন্তু শারীরিক পরিবর্তনের কারণে সে বিয়েতে অমত প্রকাশ করে। তখনও সে বিষয়টি কাউকে জানায়নি। তিনদিন আগে বিষয়টি জানাজানি হলে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। গতকাল শুক্রবার থেকে তাদের বাড়িতে উৎসুক জনতার ভিড় জমতে শুরু করে।

স্থানীয় বাসিন্দা রানা খান বলেন, প্রতিদিন তাদের বাড়িতে কয়েক হাজার মানুষ আসে তাকে দেখতে। সবাই কৌতুহল নিয়ে তাকে দেখছে। বেশ কয়েকদিন আগেই তার শরীরে পরিবর্তন লক্ষ্য করা যায়। এছাড়াও শনিবার থেকে তার কণ্ঠস্বরও পুরুষদের মতোই শোনা যাচ্ছে।

তার বাবা বলেন, স্ত্রীর কাছ থেকে বিষয়টি জানতে পারি। এখন আমার সন্তানের শারীরিক গঠন পুরুষের মতো। এছাড়া চেহারাতেও কিছুটা পরিবর্তন এসেছে। মেয়ে থেকে ছেলেতে রূপান্তরিত হওয়ার পর তার নাম রাখা হয়েছে আব্দুলাহ জিসান। শনিবার দুপুরে তার মাথার চুল কেটে দেওয়া হয়েছে। পায়জামা-পাঞ্জাবি কিনে দেওয়া হয়েছে।

তার মা পারভিন আক্তার বলেন, ছয় মাস আগে মেয়ের বিয়ে ঠিক হয়। বিয়ে করতে অসম্মতি প্রকাশ করে তার রূপান্তরিত হওয়ার ঘটনাটি বললে আমি প্রথমে বিশ্বাস করিনি। পরে শাশুড়ির মাধ্যমে সবকিছু শুনে বিশ্বাস করি। আল্লাহ তাকে মেয়ে থেকে ছেলে বানিয়ে দিয়েছেন। আগে আমাদের দুই মেয়ে ছিল। এখন এক ছেলে ও এক মেয়ে হওয়ায় আমরা খুশি।

এদিকে, রপান্তরিত ব্যক্তির দাবি, সাত মাস আগে থেকে বিষয়টি বুঝতে শুরু করি। প্রথমে চাচিকে জানাই। এরপর বাবা-মা বিষয়টি জানতে পার এন। এসএসসি পরীক্ষার পর বিষয়টি প্রকাশ করার ইচ্ছে ছিল। কিন্তু তার আগেই প্রকাশ হয়ে গেল। এর আগে ঘাটাইল উপজেলায় গিয়ে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়েছে। ডাক্তারও শারীরিক পরিবর্তনের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তার ইচ্ছা এসএসসি শেষ করে মাদ্রাসায় ভর্তি হওয়ার।

এ বিষয়ে গোপালপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার-পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আলিম আল রাজি বলেন, স্থানীয় লোকজনের মাধ্যমে বিষয়টি জানতে পেরেছি। আমাদের দেশে মাঝে-মধ্যেই এ ধরনের ঘটনা ঘটে। এটা সাধারণত হরমোনজনিত সমস্যার কারণে হয়ে থাকে। আমি এই বিষয়েরই ডাক্তার। আগামীকাল (রবিবার) পরীক্ষা নিরীক্ষা করে দেখা হবে। সেখানে টিউমার থাকতে পারে। সে যদি আগে সত্যিকারের মেয়ে হয়ে থাকে তাহলে তার জরায়ু থাকবে। হরমোনের কারণে বাহ্যিক পরিবর্তন হবে। কিন্তু ভেতরে বা জরায়ু পরিবর্তন হবে না।

এ বিষয়ে রাজধানীর বায়োমেড ডায়াগনস্টিক এন্ড রিসার্চ ল্যাবরেটরির মেডিকেল অফিসার ডা. মো. মুহিদুল ইসলাম বলেন, এ ধরনের ঘটনা আগেও বহুবার ঘটেছে। নির্দিষ্ট একটা বয়স থেকে হরমোনাল পরিবর্তনের কারণে এমনটা হতে পারে। একে মেডিকেলের পরিভাষায় ‘কনজেনিটাল অ্যাড্রেনাল হাইপারপ্লাসিয়া’ বলা হয়। এ অবস্থায় অপারেশন করে অ্যাড্রেনাল গ্ল্যান্ড কেটে ছোট করে ফেললে আবার পূর্বের অবস্থায় ফিরে যাওয়া সম্ভব।এবারই প্রথম নয়। এর আগেও দেশে-বিদেশে এ ধরনের ঘটনার উদাহরণ রয়েছে।