ভারতে মাত্র ৭ ঘণ্টায় ১০১ জন নারীকে বন্ধ্যাত্বকরণ! – News Portal 24
ঢাকাSunday , ৫ সেপ্টেম্বর ২০২১

ভারতে মাত্র ৭ ঘণ্টায় ১০১ জন নারীকে বন্ধ্যাত্বকরণ!

নিউজ পোর্টাল ২৪
সেপ্টেম্বর ৫, ২০২১ ৫:৩২ পূর্বাহ্ন
Link Copied!

অনলাইন ডেস্ক:: ভারতে সরকার দেশব্যাপী বিনামূল্যে বন্ধ্যাত্বকরণ কর্মসূচি করে থাকে। সরকারি নির্দেশনা অনুসারে, একজন সার্জন দিনে সর্বোচ্চ ৩০টি অস্ত্রোপচার করতে পারবেন। ভারতের ছত্তিশগড় রাজ্যের এক চিকিৎসকের বিরুদ্ধে মাত্র সাত ঘণ্টার মধ্যে ১০১ জন নারীকে অস্ত্রোপচারের অভিযোগ উঠেছে।

পিটিআইয়ের প্রতিবেদন অনুযায়ী, ঘটনাটি ঘটেছে সরগুজা জেলায় সরকারি পরিচালিত একটি সরকারি বন্ধ্যাত্বকরণ কর্মসূচিতে। ২৭ আগস্ট রাজধানী রায়পুর থেকে ৩০০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত মাইনপাট ডেভেলপমেন্ট ব্লকের নর্মদাপুর কমিউনিটি হেলথ সেন্টারের বন্ধ্যাত্বকরণ কর্মসূচিটি অনুষ্ঠিত হয়েছিল।

অভিযোগ পেয়ে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে ছত্তিশগড় সরকার। অভিযুক্ত চিকিৎসক এত বেশি অপারেশন করে থাকলে শাস্তির মুখে পড়তে পারেন।

জানা গেছে, গত ২৭ আগস্ট এক বন্ধ্যাত্বকরণ শিবিরের আয়োজন করা হয়েছিল রাজ্যের নর্মদাপুর স্বাস্থ্যকেন্দ্রে। ওই দিন দুপুর ১২টা থেকে সন্ধ্যা ৭টার মধ্যে ১০১টি অপারেশন করেছেন ওই চিকিৎসক।

ইতোমধ্যেই তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠিত হয়েছে। অভিযুক্ত চিকিৎসকের কাছে জবাব চেয়ে নোটিশও পাঠিয়েছে রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতর।

ওই দিন যে ১০১ নারীর বন্ধ্যাত্বকরণ হয়েছিল, তারা সবাই সুস্থ আছেন। ছত্তিশগড়ের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ দফতরের মুখ্য সচিব ডা. অলোক শুক্লা জানিয়েছেন, একদিনে সর্বোচ্চ ৩০টি অপারেশন করতে পারেন কোনো শল্য চিকিৎসক। তদন্ত করে দেখা হবে, কেন এই গাইডলাইন ভাঙা হলো।

তবে অভিযুক্ত চিকিৎসক জানিয়েছেন, অনেক নারী তার কাছে দ্রুত অপারেশন করে দেওয়ার আবেদন জানিয়েছিলেন। যেহেতু তারা প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চল থেকে এসেছিলেন, তাই তাদের দাবি ছিল দ্রুত অপারেশন না হলে তাদের পক্ষে মুশকিল। সব দিক বিবেচনা করে দ্রুত অপারেশন করতে হয়েছিল।

উল্লেখ্য, এর আগে ২০১৪ সালের নভেম্বরে ভারতের সরকারি এক বন্ধ্যাত্বকরণ শিবিরে অপারেশন করানোর পরে ৮৩ জন নারী অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাদের মধ্যে ১৩ জনের মৃত্যু হয়। ওই ঘটনাকে কেন্দ্র করেও প্রবল বিতর্ক ছড়িয়েছিল। সূত্র : পিটিআই