ধূমপায়ীদের জন্য দুধ বা দুগ্ধজাতীয় খাবার ক্ষতিকর – News Portal 24
ঢাকাSunday , ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১

ধূমপায়ীদের জন্য দুধ বা দুগ্ধজাতীয় খাবার ক্ষতিকর

নিউজ পোর্টাল ২৪
সেপ্টেম্বর ২৬, ২০২১ ৯:৪৮ পূর্বাহ্ন
Link Copied!

লাইফস্টাইল ডেস্ক:: ‘ধূমপান স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকর’ বা ‘ধূমপান ক্যানসারের কারণ’ এসব বাণী জেনেও যাদের সিগারেট ছাড়া দিন চলে না, তাদের জন্য ফুসফুসকে সুস্থ রাখা একটি চ্যালেঞ্জ। তবে এমন কিছু ফল বা পদ্ধতি আছে যার মাধ্যমে ধূমপানের ফলে ফুসফুসে জমে যাওয়া ক্ষতিকর পদার্থ নিকোটিন দূর করা যায়।

কীভাবে ধূমপানের ক্ষতিকর প্রভাব কাটাবেন তা জানার আগে, জানা দরকার, কোন খাবার খেলে ফুসফুস পরিস্কারের পদ্ধতি বাঁধাগ্রস্ত হয়। এই তালিকায় প্রথমেই আছে দুধ বা দুগ্ধজাতীয় পদার্থ, এর মধ্যে পড়ে দুধ চাও। তাই ফুসফুসের স্বাস্থ্য ভাল না হলে দুগ্ধজাত পদার্থ খাওয়ার আগে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

ধূমপান ছাড়াও ফুসফুসে দূষিত পদার্থ জমে। তার অন্যতম কারণ বায়ুদূষণ। ফুসফুসে জমা দূষিত পদার্থ ভবিষ্যতে শ্বাসকষ্টের কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে। এমনকি ক্যানসারের মতো অসুখের আশঙ্কাও অনেকাংশে বাড়িয়ে দেয় এই সব দূষিত বস্তু।

কী করে ফুসফুসকে দূষণ মুক্ত করবেন? এর সহজ রাস্তা রয়েছে বাড়িতেই।

১. আনারস: ফুসফুসে জমা নিকোটিন বা অন্য দূষিত পদার্থ সাফ করতে পারে আনারস। নিয়মিত এই ফল বা তার রস খেলে ফুসফুসের স্বাস্থ্য ভাল হয়।

২. গ্রিন টি: এই চায়ে বিপুল পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট আছে। গোটা শরীরের দূষিত পদার্থ সাফ করতে এর বিকল্প নেই। ফুসফুসে জমা ক্ষতিকারক পদার্থও সহজে সাফ করতে পারে এটি।

৩. আদা: ঠান্ডা লাগলে অনেকেই আদা খান। আদা গোটা শ্বাসযন্ত্রেরই উপকার করতে পারে। সারা দিন মাঝে মধ্যে আদা চিবিয়ে খেলে ফুসফুসে জমা দূষিত পদার্থ সাফ হয়।

৪. গাজর: গাজরের রস ফুসফুস পরিষ্কার করার মোক্ষম দাওয়াই এটি। রোজ দু’গ্লাস করে এই রস খেলে ফুসফুস দূষণমুক্ত হয়।

৫. আমলকী: চিকিৎসকরা মনে করেন, প্রত্যেকদিন আমলকী খেলে লিভার ভালো থাকে। শরীর থেকে সমস্ত দূষিত পদার্থ বের করতে সাহায্য করে। ধুলো-ধোঁয়ায় আমাদের শরীরের ক্ষতিকর প্রভাব কমিয়ে দেয় এই আমলকী।

৬. টমেটো: দূষণের ফলে শ্বাসযন্ত্রে হওয়া ক্ষতিকর প্রভাব কম করতে সাহায্য করে এই সবজি। কারণ, টমেটোতে এক ধরনের অ্যান্টিঅক্সিডেন্টস রয়েছে।

৭. তুলসি: প্রত্যেকদিন ১০ থেকে ১৫ মিলি তুলসির রস খেলে শরীরে দূষণ প্রতিরোধ করার ক্ষমতা বাড়ে। পাশাপাশি ফুসফুসকে বায়ু দূষণের হাত থেকে বাঁচাতে তুলসির কোন বিকল্প নেই।

৮. লেবু জাতীয় ফল: কমলালেবু, পেয়ারা, লেবুতে প্রচুর পরিমানে ভিটামিন সি থাকে। এই সমস্ত ফল ধোঁয়া থেকে আমাদের ফুসফুসে যে ক্ষতি হয়, সেই ক্ষতি কমাতে পারে।

৯. গুড়: আয়ুর্বেদ চিকিৎসকরা মনে করেন, হাঁপানি, ব্রঙ্কাইটিসের মতো রোগের ক্ষতিকর প্রভাব দূর করতে সবথেকে ভালো গুড়।

১০. হলুদ: শরীর থেকে সমস্ত টক্সিন বের করতে সাহায্য করে। হাঁপানি, কফ দূর করতে হলুদ এবং ঘি দিয়ে তৈরি মিশ্রণ বেশ উপকারী। এছাড়াও হলুদ আমাদের শরীরে অনেক কাজে আসে।