সম্পত্তি বিরোধের জের ধরে বসতঘরে ঢুকে প্রবাসীর স্ত্রীকে ধর্ষণ! – News Portal 24
ঢাকাTuesday , ১ জুন ২০২১

সম্পত্তি বিরোধের জের ধরে বসতঘরে ঢুকে প্রবাসীর স্ত্রীকে ধর্ষণ!

নিউজ পোর্টাল ২৪
জুন ১, ২০২১ ৪:২৬ অপরাহ্ন
Link Copied!

ডেস্ক রিপোর্ট:: ফেনীর দাগনভূঞায় সম্পত্তি নিয়ে বিরোধের জের ধরে বসতঘরে ঢুকে প্রবাসীর স্ত্রীকে ধর্ষণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় দুইজনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

সোমবার দাগনভূঞা থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলাটি করেন নির্যাতিতা প্রবাসীর স্ত্রী।

ভুক্তভোগী ওই নারীর ডাক্তারি পরীক্ষা সোমবার শেষ হয়েছে। ধর্ষণের ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার রাতে উপজেলার পূর্ব চন্দ্রপুর ইউনিয়নে।

অভিযুক্ত আসামিরা হলেন- ‘দাগনভূঞা উপজেলার পূর্ব চন্দ্রপুর গ্রামের আব্দুল হাইয়ের বাড়ির আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে দাগনভূঞা বাজারের ব্যবসায়ী ডক্টরস চেম্বার (রাজ্জাক ফার্মেসির) স্বত্বাধিকারী মোস্তাফিজুর রহমান (৪৫) ও আবুল হোসেনের ছেলে নজরুল ইসলাম (৩৫)।’

নারী সূত্রে জানা যায়, ‘বাদীনির সঙ্গে বিবাদীদের দীর্ঘদিন ধরে সম্পত্তি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। এ বিরোধের জের ধরে বাদীনির ছেলে আবিদকে ১নং বিবাদী মোস্তাফিজ দাগনভূঞা বাজারের বসুরহাট রোড়ে তার মালিকানাধীন রাজ্জাক ফার্মেসির ভিতর আটকে রেখে মারধর করেন। এ খবর পেয়ে বাদীনি ছুটে গেলে বাদীনিকে রড় দিয়ে মারধর করলে তার পা ভেঙে যায়।’

এ ঘটনার পর থেকে বাদীনি তার সন্তানদের অন্যত্র পাঠিয়ে দেয়। এ সুযোগে শনিবার রাতে বিবাদী মোস্তাফিজ ও নজরুল বিরোধকৃত সম্পত্তিতে স্থাপনা নির্মাণ শুরু করে।

এতে মামলার বাদীনি বাধা প্রদান করলে বিবাদীরা তার পেছন থেকে মুখ চেপে ধরে তার ঘরে নিয়ে ধর্ষণ করে।

বাড়িতে বাদীনি ও বিবাদীদের ঘর ছাড়া আর কোনো বসতঘর না থাকায় বাদীনির চিৎকারে কেউ আসেননি। ধর্ষণের পর এ ঘটনা কাউকে জানালে বাদীনির সন্তানসহ সবাইকে হত্যা করার হুমকি প্রদান করা হয়। বর্তমানে ধর্ষিতা ফেনী জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

দাগনভূঞা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইমতিয়াজ আহমেদ বলেন, ‘ধর্ষণের ঘটনায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা হওয়ার পর থেকেই অভিযুক্তদের গ্রেফতারে পুলিশি অভিযান চলছে। ক্ষতিগ্রস্ত নারীর ডাক্তারি পরীক্ষা সোমবার শেষ হয়েছে।’ সূত্র: যুগান্তর