যানজটের কারণে পথেই কন্যাসন্তানের জন্ম দিলেন গৃহবধূ রেহেনা – News Portal 24
ঢাকাThursday , ১৭ জুন ২০২১

যানজটের কারণে পথেই কন্যাসন্তানের জন্ম দিলেন গৃহবধূ রেহেনা

নিউজ পোর্টাল ২৪
জুন ১৭, ২০২১ ১:৪০ অপরাহ্ন
Link Copied!

ডেস্ক রিপোর্ট:: যানজটের কারণে পথেই কন্যাসন্তানের জন্ম দিলেন রেহেনা বেগম নামে এক গৃহবধূ। মঙ্গলবার সকালে রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলায় এ ঘটনা ঘটে।

সংশ্লিষ্টরা জানান, রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার কোর্ট চত্বর এলাকায় স্থাপিত বিআইডব্লিউটিসির অপরিকল্পিত ওয়েস্কেলের কারণে জনদুর্ভোগ চরমে পৌঁছেছে । ওয়েস্কেলের কারণে প্রতিদিনই সেখানে যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে।

যানজটের কারণে পার্শ্ববর্তী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রবেশের পথও বন্ধ হয়ে থাকে ঘণ্টার পর ঘণ্টা। ফলে রোগী নিয়ে হাসপাতালে প্রবেশ কিংবা বাহির হতে চরম বিপাকে পড়তে হয় সংশ্লিষ্টদের।

গত মঙ্গলবার ভোর ৪টার দিকে উপজেলার দৌলতদিয়া ইউনিয়ন এলাকার গৃহবধূ রেহেনা বেগমের প্রসব বেদনা উঠলে তাকে গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের উদ্দেশ্যে নিয়ে আসেন পরিবারের লোকজন।

কিন্তু হাসপাতাল গেটে যানজট লেগে থাকায় তাকে বহনকারী  মাহেন্দ্রটি আটকে যায়। এর আধাঘণ্টা পর রাস্তাতেই তিনি সন্তান প্রসব করেন। পরে যানজট কমে এলে মা ও শিশুকে  হাসপাতালে নিয়ে সেবা দেয়া হয়।

গৃহবধূর স্বামী লুৎফর রহমান মোল্লা জানান,  ‘হাসপাতালের সামনে গাড়ির জট লেগে থাকায় রাস্তা বন্ধ ছিল। যে কারণে তারা হাসপাতালে প্রবেশ করতে পারছিলেন না। এমতাবস্থায় পথেই মাহেন্দ্রর মধ্যে তার স্ত্রী একটি কন্যাসন্তান প্রসব করেন। মা ও শিশু এখন ভালো আছে। তবে খারাপ কিছুও ঘটতে পারত। হাসপাতাল গেটে এভাবে যানজট লেগে থাকা বন্ধ করা উচিত।’

স্থানীয় বাসিন্দা কুদ্দুস আলম, আলাউদ্দিন শেখ, সেলিম সরদার, রোকসানা বেগমসহ অনেকেই বলেন, ‘এখানে ওয়েস্কেলের কারণে প্রতিদিনই মহাসড়কে যানজট লেগে থাকে। এতে নানা ধরনের সমস্যার সৃষ্টি হচ্ছে। রাস্তায় আটকে থাকা যানবাহনের উচ্চশব্দে হাসপাতালের রোগী ও আশপাশের মানুষের সমস্যা হচ্ছে । রোগীদের ঠিকমতো হাসপাতালে প্রবেশ কিংবা বাহির করা যাচ্ছে না। স্কেলটি এখান থেকে অন্যত্র সরিয়ে নেয়া দরকার।’

বিআইডব্লিউটিসির দৌলতদিয়া ঘাট শাখার ব্যাবস্থাপক ফিরোজ শেখ বলেন, ‘ফেরিতে পণ্যবাহী যানবাহন ওঠার আগে এই ওয়েস্কেল থেকে পরিমাপ করে নেওয়া হয়। স্কেল এলাকায় সরু রাস্তা এবং যানবাহন পরিমাপে কিছুটা সময় লাগায় সেখানে যানবাহনের সারি হয়। তবে স্কেলটি অন্যত্র সরানোর বিষয়ে কর্তৃপক্ষের আপাতত কোনো পরিকল্পনা রয়েছে কিনা তা জানা নেই। ‘

গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আসিফ মাহমুদ বলেন, ‘স্কেলটির কারণে সৃষ্ট যানজটে আমাদের রোগী এবং হাসপাতালের স্টাফরা দীর্ঘদিন ধরে ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন। আমি বিষয়টি বহুবার উপজেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভা ও সমন্বয় সভায় উপস্থাপন করেছি। কিন্তু বিষয়টিতে বিআইডব্লিউটিসি কর্তৃপক্ষ গুরুত্ব দিচ্ছে না।’

গোয়ালন্দ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. মোস্তফা মুন্সি বলেন, ‘স্কেলটির কারণে সৃষ্ট সমস্যা নিরসনে বিআইডব্লিউটিসি কর্তৃপক্ষকে গুরুত্বসহকারে বিবেচনা করা দরকার।’ সূত্র: যুগান্তর